এই খবর পড়ার পরে আর সাবান বা ফেস ওয়াশ দিয়ে মুখ ধোওয়ার সাহস করবেন না

গোপন ভিডিওটি দেখতে প্রাপ্তবয়স্করা নিচের ছবি তে ক্লিক করুন। শুধুমাত্র প্রাপ্তবয়স্কদের জন্যে। বাচ্চাদের জন্যে নয়।

মুখ ধোওয়ার জন্য সাবান বা ফেস ওয়াশ তো কমবেশি সকলেই ব্যবহার করেন। কিন্তু জানেন কী, মুখ পরিষ্কার করার জন্য ব্যবহৃত এই সমস্ত উপাদান কতখানি ক্ষতি করে মুখের ত্বকের? হেলথ অ্যান্ড বিউটি ইনস্টিটিউট অফ টরেন্টো-র দ্বারা পরিচালিত একটি গবেষণা সম্প্রতি জানাচ্ছে, ফেসিয়াল ক্লেনজার অথবা সাবানের নিয়মিত ব্যবহার মুখের ত্বকের মারাত্মক ক্ষতিসাধন করে। এই ক্ষতির পরিমাণ আরও বৃদ্ধি পায় শীতকালে সাবান দিয়ে মুখ ধুলে।

 

কী রকম? গবেষকরা জানাচ্ছেন, ফেসিয়াল ক্লেনজার কিংবা সাবানের মূল লক্ষ্যই হল, ত্বক থেকে ধুলো, ঘাম, সেবাম এবং তৈলাক্ত উপাদান দূর করা। সাবান এই কাজ করতে পারে সারফেকট্যান্টস-এর সহায়তায়। সারফেকট্যান্টস হল সারফেস-অ্যাক্টিভ এজেন্ট-এর সংক্ষিপ্ত রূপ। সাবান দিয়ে মুখ ধোওয়ার সময়ে এই সারফেকট্যান্ট ত্বকে জমে থাকা ধুলো ও তেলকে ঘিরে ফেলে। তার পর তেল ও ধুলোকে ছোট ছোট পার্টিকেলে ভেঙে ফেলে, এবং এর পর যখন জল দিয়ে ধোয়া হয় মুখ, তখন ওই ছোট পার্টিকেলগুলোও ধুয়ে যায়।

এই সারফেকট্যান্ট হল এমন এক ধরনের রাসায়নিক উপাদান, যা লোশন, পারফিউম, শ্যাম্পু এবং নানাবিধ হেয়ারকেয়ার প্রোডাক্টে মিশ্রিত থাকে। বিবিধ ভূমিকা পালন করে এই উপাদান— যেমন ডিটারজেন্টের হিসেবে, ওয়েটিং এজেন্ট হিসেবে, ফোমিং এজেন্ট হিসেবে, কন্ডিশনিং এজেন্ট হিসেবে কিংবা এমালসিফায়ার অথবা সলিউবিলাইজার হিসেবে।

 

১৮+ ভিডিওটি দেখতে নিচের ছবিতে ক্লিক করুন। বাচ্চারা ভুলেও ক্লিক করবেনা, দূরে থাকো।

তা হলে এই সারফেকট্যান্ট তো ত্বকের পক্ষে উপকারীই হওয়া উচিৎ। সেখানেই গোলমাল বলে মনে করছেন ডাক্তাররা। আসলে মুখের এপিডারমিসের সব চেয়ে বাইরের স্তর স্ট্র্যাটাম করনিয়ামের নানাবিধ ক্ষতিসাধন করে এই রাসায়নিক উপাদান। কী রকম? মূলত এই ধরনের সমস্যাগুলি দেখা যায়—

১. মুখ ধোওয়ার পরে চামড়ায় টান ধরা
২. ত্বকের শুষ্কতা
৩. ত্বকের সুরক্ষাকবচ ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া
৪. ত্বক লাল হয়ে যায়
৫. জ্বালা ভাব
৬. চুলকানি

 

গবেষকদলের প্রধান অ্যান্টনি অর্চার্ড বলছেন, ‘এই সমস্ত অসুবিধা যে মুখ ধোওয়ার পরে সঙ্গে সঙ্গে দেখা যাবে, এমনটা নয়। কিন্তু এটা জেনে রাখুন, দীর্ঘ দিন ধরে ফেস ওয়াশ বা সাবানে মুখ ধোওয়ার অভ্যাস থাকলে ত্বক ক্ষতিগ্রস্ত হবেই। কারণ সারফেকট্যান্ট ত্বকের স্ট্র্যাটাম করনিয়াম, লিপিড এবং পিইচ লেভেলে প্রচুর ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে।’

কিন্তু তা হলে মুখ ধোওয়ার জন্য কী ব্যবহার করা উচিৎ? ডাক্তার অ্যান্টনির মত, সব চেয়ে ভাল হয় একেবারে সাদা জলে মুখ ধুতে পারলে। তা না হলে কোনও প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহার করা যেতে পারে মুখ পরিষ্কার করার জন্য।

ভিডিওটি এইখানে, নিচের ছবিতে ক্লিক করে ফ্রি দেখুন ভিডিওটি... পোস্টটি সেয়ার করবেন। আপনার একটি সেয়ারেই বেঁচে যাবে হাজারো মানুষের প্রান।